কক্সবাজারে কালারপোল স্কুল এস.এস.সি ৯৬- ব্যাচ এর বনভোজন ও বর্নাঢ্য বন্ধু সমাবেশ

 ২০১৯-০৯-০৪  ০৪:৪১ পিএম
 জে.জাহেদ, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

কক্সবাজারে কালারপোল স্কুল এস.এস.সি ৯৬- ব্যাচ এর বনভোজন ও বর্নাঢ্য বন্ধু সমাবেশ

চট্টগ্রাম কর্ণফুলী উপজেলার ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কালারপোল হাজী ওমরা মিয়া চৌং বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়। এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এস.এস.সি-৯৬ ব্যাচ পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রনগরী কক্সবাজারে (৩০ ও ৩১ আগষ্ট) দু’দিনব্যাপি এক বর্নাঢ্য মতবিনিময় সভা, আড্ডা, বনভোজন, র‌্যাফেল ড্র ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উদযাপন করেছেন।

এসময় ৯৬ ব্যাচের সদস্যেরা কক্সবাজার শহরের হোটেল সী ওয়ার্ল্ডে অবস্থান করে শহরের হিমছড়ি, ইনানী ও কক্সবাজার বিচে বিনোদন জমিয়ে তোলেন। জমকালো পরিবেশে হোটেলে বুফে খাবারের আয়োজন করেন। “এসো মিলি প্রাণের মেলায়, নাড়ির টানে ফিরি সেই ছোট্ট বেলায়” সুখময় স্মৃতির টানে হৃদয়ের উৎসব’ এই প্রত্যয়ে আয়োজিত বনভোজন ও বন্ধু সমাবেশে এস.এস.সি ব্যাচ-৯৬ এর প্রায় ৫০জন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। তারা বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত থাকলেও দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে সেদিন এক হন।

দেশের স্বনামখ্যাত আজিম এন্ড কোম্পানীতে কর্মরত মোহাম্মদ সেলিম খাঁন তার অনুভুতি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন, ‘বন্ধুদের সাথে মিলিত হওয়ার সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইনা বলে কয়েক মাস ধরে চেষ্টা চালিয়ে অবশেষে শত ব্যস্ততার মাঝে অধিকাংশ বন্ধু একত্রিত হয়েছি।’ রাজনীতি ও নিজ ব্যবসায় ব্যস্ত থাকা মুুহাম্মদ সেলিম হক তার অনুভুতি প্রকাশ কালে বলেন, ‘বন্ধুত্বের বন্ধনকে দৃঢ় করার এই প্রয়াস যেন সবার মাঝে বিরাজ থাকে। বন্ধুত্ব মানে বন্ধুত্বই। এটি এমন এক শব্দ, যার কোনো সংজ্ঞা দরকার হয় না। পথ চলতে চলতে মানুষের জীবনে অনেকের সাথেই বন্ধুত্ব হয় কিন্তু স্কুল জীবনের বন্ধুদের সাথে তার তুলনা চলে না। হেলেন কেলারের ভাষায় বলতে হয়, অন্ধকারে একজন বন্ধুর সঙ্গে হাঁটা আলোতে একা হাঁটার চেয়ে অনেক ভালো।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কালারপোল হাজী ওমরা মিয়া চৌং বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় এর এস.এস. সি ব্যাচ’ ৯৬-এর মুহাম্মদ সেলিম হক, তারেক, সেলিম খাঁন, আবু তাহের, সাইফুদ্দীন মানিক, আব্দুল করিম, মহি উদ্দীন মুরাদ, শিমুল, মো. আলী, জসিম উদ্দিন, রফিকুল ইসলাম, আবুল বশর, মাহবুব আলম তারা, আবু শামা, ইব্রাহিম, জসিম উদ্দীন, আব্দুল হালিম, দোস্ত মো, আবু বক্কর, আবছার রনি, জাহাঙ্গীর বেলাল, বাবলা চৌধুরী, অনুতোষ চৌধুরী, নুর মোহাম্মদ, আলী জিন্নাহ, মুহাম্মদ ফরিদ, মো. ফরুখ, পেয়ার আহমদ, আলা উদ্দিন, মো. হোসেন, আয়ুব খাঁন, মুজিব, মুহাম্মদ হাসান, ইউসুফ আলী, ইছহাক সুমন, জাগির, মোরশেদ, আবু তাহের, মীর আহমদ, প্রবাস কান্তি, ইলিয়াছ মধু, মুহাম্মদ হাসান, মনির আহমদ, জাহাঙ্গীর সহ আরো অনেকেই।

এছাড়াও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে থাকা ৯৬ ব্যাচের বন্ধুরা ভিডিও কলের বদৌলতে সংযুক্ত থেকে আনন্দ উপভোগ করেন। যেমন- জাপান, সৌদি আরব, মালয়েশিয়া, দুবাই, কুয়েত, আমেরিকা ও বান্দরবন আর্মি ক্যাম্প থেকে লাইভে যোগ দিয়েছিলেন সহপাঠি শাহিনুর আক্তার, আব্দুর রহমান, মুহাম্মদ ইসহাক, মুহাম্মদ আজাদ, নুরুল আকতার, মামুনুর রশিদ, মুহাম্মদ আরমান ও মুহাম্মদ মনছুর। অনেকে আবার পুরনো দিনের স্মৃতিচারণ করে স্কুল জীবনের ঘটনা বলে শোনান।

৯৬ ব্যাচের কার্যক্রম পরিচালনায় ছিলেন মুহাম্মদ সেলিম খাঁন সভাপতি, আব্দুল করিম সাধারণ সম্পাদক ও আলা উদ্দীন আহমদ চৌধুরী শিমুল কে অর্থ সচিব করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। বন্ধু সমাবেশ ও বনভোজনের এক পর্যায়ে হোটেলের হলরুমে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন বিভিন্ন শিল্পীদের সাথে সহপাঠি বন্ধু অনুতোষ চৌধুরী ও প্রবাল কান্তি। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন মুহাম্মদ সেলিম খাঁন ও সাইফুদ্দীন মানিক। ১০টি র‌্যাফেল ড্র সম্পন্ন শেষে ৯৬ ব্যাচের সকল সহপাঠিদের হাতে স্মৃতিস্বরুপ (লোগো সম্বেলিত) একটি করে মগ উপহার দেওয়া হয়।