মোঃ তাসলিম উদ্দিন সরাইল ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি ঃ
দরিদ্র ও অসহায় শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর অনন্য স্থাপন করলেন
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার নির্বাহী অফিসার উম্মে  ইসরাত, গত কাল কম্বল নিতে অাসা প্রতিবন্ধী রহিম মিয়া কে কম্বল প্রদান কালে তার বর্তমান অবস্থা জানতে চান। প্রতিবন্ধী রহিম মিয়ার জানান, অামি ভিক্ষা করে অামার সংসার চলে, তখন তিনি তার কষ্ট ও ভিক্ষা যাতে না করতে হয়, প্রতিবন্ধী পাশে দাঁড়ান এবং ঘোষনা করেন সংসার চালাতে দোকান করে দিবে তার বাড়িতে, সে যাতে  ভিক্ষা করতে না  হয় অার্থিক সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দেন এ এক মানবতার দৃষ্টান্ত স্হাপন করেন। প্রতিবন্ধী রহিমের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এলাকাবাসী।
 মানুষ হাজার বছর বাঁচে না।কিন্তু যতদিন ই বেঁচে থাকে ততদিন ই যথেষ্ট নিজেকে হাজার বছর মানুষের মনে অমর করে রাখার জন্য।

আমাদের উপজেলার নির্বাহী অফিসার উম্মে ইসরাত ঠিক তেমন ই একজন কর্মদক্ষ  সাদা মনের মানুষ।যিনি তার কর্মের মধ্যে দিয়ে বেঁচে রবেন হাজার বছর। কনকনে শীতের মাঝে প্রত্যন্ত গ্রামের গরীব দুঃখী হত- দরিদ্র মানুষের  দুয়ারে দুয়ারে সাহায্য সহযোতার জন্য পাশে দাড়িঁয়েছে।

  সাম্প্রতি  শাহবাজপুর ইউনিয়নে রাত ১০ টার সময় গিয়ে ঘুরে ঘুরে নিজ হস্তে অসহায় গরীব শীর্তাতদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন। শীতের রাতে নিজের আরাম আয়েশকে জালাঞ্জলী দিয়ে রাস্তায় নেমে প্রকৃত গরীব,অসহায় শীতার্তদের চিহ্নিত করে নিজ হস্তে কম্বল বিতরণ করেন। মানবতার নারী  ইউএনও  উম্মে ইসরাত এক গরীব অসহায় বৃদ্ধার বাড়ীতে গিয়ে তার উনুনের পাশে বসে তাকে কম্বল দিচ্ছেন!
এমন করে গত কাল নিজ কার্যালয়ে

প্রতিবন্ধি  মোঃ  রহিম মিয়া,  সরাইল সদর ইউনিয়নের  উত্তর আরিফাইলের

বাসিন্দা লস্কর মিয়া প্রতিবন্ধী ছেলে কে

 একটি কম্বল প্রদান করার  সময় সের খুজ-খবর নেয় এবং ভিক্ষা না করার জন্য দোকান করে দিবেন বলে ঘোষনা করেন। প্রতিবন্ধী রহিম মিয়া এমন কথা শুনে অনেক খুশী, মনে হয় অার কষ্টকরে ভিক্ষা করতে হবে না।
 উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে ইসরাত
এমন একজন মানবতার নারী  পেয়ে সরাইল উপজেলা কেবল ধন্য ই হয় নি,এ উপজেলা  পেয়েছে কর্মদক্ষ এক জন সাদা মনের হাঁসি উজ্জঁল অাস্হা বাজন অফিসার।