চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এ বি এম মহিউদ্দীন চৌধুরীর মেজবানি খেতে গিয়ে পদদলিত হয়ে নিহত দুই ব্যক্তির পরিবারের দুই সদস্যকে চাকরী দিল চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) প্রশাসন। বুধবার (২৭ ডিসেম্বর) রাতে নগরীর দুই নম্বরস্থ প্রয়াত মহিউদ্দীন চৌধুরীর বাসভবনে চাকরীর নিয়োগপত্র তুলে দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দীন চৌধুরী ও উপ-উপাচার্য় প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার।
চাকরী পাওয়া দুই ব্যক্তি হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ছাত্র প্রয়াত দীপংকর দাশ রাহুলের বড় ভাই শুভংকর দাশ ২০ তম গ্রেডে কলা ও মানবিদ্যা অনুষদের ডিন অফিসে পিয়ন পদে এবং প্রয়াত রিটন দেবের স্ত্রী রিমি দেব একই গ্রেডে বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকসু কার্যালয়ে অফিস এ্যাটেনডেন্ট পদে।
এসময় উপস্থিতি ছিলেন চট্টলবীর আলহাজ্ব এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর সহধর্মিনী হাসিনা মহিউদ্দীন,মহিউদ্দীন চৌধুরীর দুই পুত্র,বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্টার, সকল অনুষদের ডিন বৃন্দ, প্রক্টর, ও সহকারী প্রক্টর,বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নেতৃত্ববৃন্দ। উল্লেখ্য, সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগরীর ১২টি কমিউনিটি সেন্টারে চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের প্রয়াত সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানি ও মেজবানের আয়োজন করা হয়। এসময় মহানগরীর রিমা কমিউনিটি সেন্টারে পদদলিত হয়ে অন্তত ১০ জন নিহত হয়।