জ্ঞানই মানুষকে সুন্দর ও সভ্য করে এবং পৃথিবীকে রাখে নিরাপদ।
আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সমাজবিজ্ঞানী ও শিক্ষায় একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেন, জ্ঞানহীন মানুষ পৃথিবীর বোঝাস্বরূপ ও পশুর সমতুল্য। তারা অনেক সময় ভয়ানক হিং¯্র হয়ে উঠে। তখন তাদের কারণে পৃথিবীর অনেক ক্ষতি হয়, মানবতা পদদলিত হয়। বস্তুত জ্ঞানই হচ্ছে আলো। এই জ্ঞানই মানুষকে সুন্দর ও সভ্য করে এবং পৃথিবীকে রাখে নিরাপদ। স্বরস্বতী দেবী সনাতন ধর্মাবলম্বীদের জন্য এই জ্ঞান বা বিদ্যারই প্রতীক।
গত ২২ জানুয়ারি ২০১৮, সোমবার, নগরীর জিইসি মোড়স্থ’ প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় ভবনে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাণী অর্চনা কমিটির উদ্যোগে বিদ্যা ও সুরের দেবী স্বরস্বতীর আরাধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, প্রতিটি ধর্মের মূল লক্ষ্য হলো ভালবাসার জয় ঘোষণা করা, মানবতাবাদ প্রতিষ্ঠা করা। কিন্তু জ্ঞানী মানুষ ছাড়া তা সম্ভব নয়। তিনি যাঁরা জ্ঞান অর্জন করেন ও জ্ঞান অনুসারে চলেন, তাঁদেরকে প্রকৃত জ্ঞানী উল্লেখ করে বলেন, জ্ঞানী মানুষ মানবতার উত্তম সেবক। তাঁরা পরার্থে নিজের জীবনকে বিলিয়ে দিয়ে মানবজনম সার্থক করেন।
অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন ওয়াইয়ামবা ইউনিভার্সিটি অব শ্রীলংকার প্রফেসর ড. সিভালি সিরিমেভান একেনায়েকে রানাওয়ানা, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রফেসর ড. মোহীত উল আলম, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইকিউএসি-র এডিশনাল ডিরেক্টর প্রফেসর ড. আশরাফুল আলম। এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. তৌফিক সাঈদ, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের সহকারী ডিন মঈনুল হক, তড়িৎ প্রকৌশল ও গণিত বিভাগের চেয়ারম্যান ইফতেখার মনির, আইন বিভাগের চেয়ারম্যান তানজিনা আলম চৌধুরী, ব্যবস্থাপনা বিভাগের চেয়ারম্যান সুজন কান্তি বিশ্বাস, অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান ফারজানা ইয়াসমিন চৌধুরী, ইংরেজি বিভাগের চেয়ারম্যান সাদাত জামান খান-সহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ।
পূজা মÐপে শিক্ষার্থীদের দেবীর অঞ্জলি গ্রহণে প্রধান অতিথি উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন অন্যান্য অতিথিদের নিয়ে উপস্থিত ছিলেন।
পরে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা ও সাবেক মেয়র আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর পুত্র ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন। এসময় উপস্থিত ছিলেন এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর কনিষ্ঠ পুত্র বোরহানুল হাসান চৌধুরী সালেহীন, ডেপুটি রেজিষ্ট্রার খুরশিদুর রহমান প্রমুখ। ব্যারিস্টার নওফেল অনুষ্ঠানে ধর্ম ও শিক্ষার সাথে সংস্কৃতিচর্চা মনুষ্যত্বকে জাগ্রত করে উল্লেখ করে বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জ্ঞানের আলোক শিখা ছড়াতে একটি সংস্কৃতি বান্ধব পরিবেশ আবশ্যক। মনে রাখতে হবে সুন্দর সংস্কৃতিচর্চা অজ্ঞানতা-মৌলবাদ ও জঙ্গিবাদ নির্মূলে বলিষ্ঠ ভ‚মিকা রাখতে পারে। অন্ধকার মোচনে জ্ঞান ও শিক্ষাই জাগরণের শক্তি।

অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত¡াবধানে ছিলেন সহকারী অধ্যাপক সুমিত চৌধুরী, অনুপ কুমার বিশ্বাস, সঞ্জয় বিশ্বাস, বিদ্যুৎ কান্তি নাথ, রাজিব দত্ত প্রমুখ।