ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির ঘটনায় গ্রেফতারকৃত শিক্ষার্থী শামস বিন শাহরিয়ারের কথিত অডিও রেকর্ড এবং সঠিক তথ্য অবহিতকরণ ও অপপ্রচারকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. মো: নজরুল ইসলাম। রসায়ন বিভাগের গ্যালারি রুমে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়। অপরদিকে ভর্তি জালিয়াতির সুষ্ঠু তদন্তসহ পাঁচ দফা দাবিতে দুপুর একটায় কবি হেয়াত মামু ভবনের বাংলা গ্যালারিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে নীল দল।

বেলা ১১ টায় অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন ড. নজরুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘ষড়যন্ত্রকারীরা গণমাধ্যম ও সামাজিক মাধ্যমে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য পরিবেশন করছে। ২৫ ডিসেম্বর একাউন্টিং এ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস্ বিভাগের শিক্ষক আপেল মাহমুদ ফেসবুকের মাধ্যমে তাকে দোষী সব্যস্ত করে তার ও অনুষদের অন্য শিক্ষকদের নামে কুৎসা রটনা করেছেন।’

অডিও ধারণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ভর্তি পরীক্ষার সাক্ষাতকারের মতো একটি অডিও অসৎ উদ্দেশ্যে ধারণ করা হয়েছে। তার সম্মান হানি করতে সেই অডিও ক্লিপ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে প্রদান না করে লোকপ্রশাসন বিভাগের শিক্ষক আসাদুজ্জামান মন্ডল ও সামান্থা তামরিনকে দেওয়া হয়। তারা সেটা গণমাধ্যমকর্মী ও সর্বসাধারণের মধ্যে ছড়িয়ে দেন। কিন্তু প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের অডিও ক্লিপ বিধিবহির্ভূতভাবে ধারণ করে মিডিয়াকে ব্যবহার করে তাকে যে সামাজিক, রাজনৈতিক ও পারিবারিক ক্ষতির সম্মূখীন করা হয়েছে বা হচ্ছে এতে করে তিনি বিহ্বল এবং মানসিকভাবে মৃত্যুবরণ করতে চলেছেন বলে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন। পরবর্তীতে সহকারী প্রক্টর ড. শফিকুর রহমান তাকে ফাঁসানোর জন্য আটক শিক্ষার্থীকে তার নাম বলতে প্রলুব্ধ করেন। সংবাদ সম্মেলন থেকে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত কমিটি করে দোষীদের শাস্তি দাবি করেন ড. নজরুল ইসলাম ।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক তাবিউর রহমান প্রধান, তাসনীম হুমাইদা, রসায়ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান তারিকুল ইসলাম প্রমুখ।
জগৎপতি বর্মা ,বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর।